রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ১১:০১ অপরাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
লকডাউনে মাওয়া এবং পাটুরিয়াতে ফেরি ঘাটগুলোর কি যে অবস্থা? দেশে করোনার ভারতীয় ধরণ শনাক্ত-স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আজ বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শুভ জন্মদিন ৭ মে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দিন হিসাবে সভায় বক্তব্য রাখেন কোটালিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক আয়নাল হোসেন শেখ। ছেলের শিক্ষকের কাছে আব্রাহাম লিংকন তার চিঠিতে কি লিখেছিলেন? খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার আবেদন করেছেনতার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার আন্জুম সুলতানা সীমা এমপি’র উদ্যোগে অসহায়, দুস্থ ও ভ্রাম্যমান মানুষের মাঝে রমজান মাসব্যাপী ইফতার বিতরণ চলমান লক ডাউন ১৬ মে পর্যন্ত আবার বাড়ানো হলো। জার্মানে নামাজের জন্য খুলে দিল গীর্জা। আজ মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিতে যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

লক ডাউনে প্রিয়জনকে ভাল রাখবেন যেভাব।

রির্পোটারের নাম / ৩৮৮ বার
আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২০

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে দীর্ঘদিন ধরে লকডাউন চলছে।বন্ধুবান্ধব, প্রিয়জনদের সঙ্গে দেখা করার কোনও সুযোগ নেই, আড্ডা-গল্প বন্ধ প্রায়। এতদিন একটানা ঘরবন্দি থাকলে মনের উপর চাপ করাটা খুব স্বাভাবিক একটা ব্যাপার। এমতাবস্থায় শুধু কাজ আর একাকীত্ব ছাড়া জীবনে এই মুহূর্তে বলতে গেলে কিছুই নেই। আর তাই এই পরিস্থিতিতে বাড়ির সব সদস্যদের মন খারাপ হওয়া খুব স্বাভাবিক।

অন্যদিকে অধিকাংশরাই এই মুহূর্তে বাড়িতে বসেই অফিসের কাজ করছেন। কাজের লোকের আনাগোনাও বন্ধ। সবে মিলে বাড়িতে দম ফেলার সময় নেই কারোর। এতেই ছোট ছোট জিনিসে মাথা গরম হাওয়া, ঝামেলা বাড়ার মতো ঘটনা ঘটছে প্রায় প্রতিদিন।
বাড়ির এই ধরনের পরিস্থিতি কিন্তু একেবারেই সুখদায়ক নয়। আর এতে মনের উপর প্রবল চাপ পড়ে। তাই পরিবারের সদস্যদের মুখে হাসি ফেরাতে আপনাকেই এবার মাঠে নামতে হবে। তার জন্যে রইলো কিছু টিপস।

বাড়ির পরিবেশ হাসিখুশি আর হালকা রাখুন

আচমকা সব কিছু বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আমাদের জীবনযাত্রা একটা ধাক্কা খেয়েছে এ কথা ঠিক আর তার জন্য কিছু সমস্যাও হচ্ছে। কিন্তু তার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতা সবার সমান হয় না, এটাও বুঝতে হবে আপনাকে। তাই কারোর অপ্রীতিকর ব্যবহারে ধৈর্য হারাবেন না। বরং নিজে হাসি খুসি থেকে সবাইকে বোঝান এবং তাঁদের আশ্বাস দিন যে এই পরিস্থিতি সাময়িক। খুব শীঘ্রই এই মেঘ কেটে যাবে।
সংসারের কাজ ভাগ করে নিন

বাড়ির সব কাজ একা করতে যাবেন না। সন্ধেবেলার চা করা, বিছানা পাতা এবং তোলা, জিনিসপত্রের ধুলো ঝাড়া, গাছে জল দেওয়া, কিছু বাসনপত্র ধুয়ে রাখার মতো কাজ অফিসের কাজ সামলেও করতে পারা যায়। নানারকম কাজের মধ্যে থাকলে আর কেউ আলাদা করে ব্যাজার হয়ে থাকার সময় পাবেন। তাই আজই খাতা, পেন নিয়ে বসে সবাইকে সবার ভাগের কাজগুলো বুঝিয়ে দিন।

আগামী দিনের প্ল্যান করুন

একঘেয়েমি আর বিরক্তিভাব কাটানোর মহৌষধ এটি! এখন যতই বিরক্তি লাগুক, একদিন এই লকডাউন শেষ হবে। নতুন পাওয়া সেই স্বাধীনতা কেমনভাবে উপভোগ করবেন, তা নিয়ে এখন থেকেই সকলের সঙ্গে নানান প্ল্যান করুন। ভবিষ্যতের রঙিন পরিকল্পনা মন খারাপের মেঘ কাটিয়ে দিতে বাধ্য!

নিজে থাকুন হাসিখুশি

বাড়ির লোকজনের বিষণ্ণতা যেন আপনাকে কোনওভাবে গ্রাস করতে না পারে। বরং উলটোটা হোক। আপনি নিজে হয়ে উঠুন আরও হাসিখুশি আর সুন্দর! আপনার উচ্ছলতার ছোঁয়া পেলে অন্যদের মন ও ভাল হয়ে যাবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com