মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:০৫ অপরাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
কুমিল্লায় মাস্ক ব্যবহারে সচেতনতা বৃদ্ধিতে প্রচারাভিযান- পেঁয়াজ দাম নিয়ন্ত্রণের জন্য এক মাস সময় চান বাণিজ্যমন্ত্রী-টিপু মুনশি। কুমিল্লা বি-পাড়ার আলহাজ্ব আবু তাহের আর নেই। চলে গেলন না ফেরার দেশে অভিনেতা সাদেক বাচ্চু। মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মের দাবি আদায়ের বলিষ্ট ভূমিকায়- ড.আব্দুল ওয়াদুদ দু:খ কষ্ট ভুলে গিয়ে এগিয়ে যাওয়ার নামই জীবন। Farhana Haque Lima এক সময়ের পর্দা কাপানো নায়ক ফারুক অসুস্থ-ওয়ার্ল্ড খবর২৪ চীন আর ভারত হঠাৎ করে শান্তি ফিরিয়ে আনলো কীভাবে? ইসরায়েলের সাথে শান্তিচুক্তি: আমিরাত ও বাহরাইনের পর কি সৌদি আরব? সমাজে নারী পুরুষ একসাথে কাজ করলে, উন্নয়নের গতি বেড়ে যাবে।

২৫ মে ২০২০ খ্রী:বাংলাদেশের জাতীয় ও বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২১তম জন্মবার্ষিকী।

রির্পোটারের নাম / ৫৩ বার
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৬ মে, ২০২০

শুভ জন্মদিন বাংলাদেশের জাতীয় ও বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম।

“ও মন রমজানের এই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ” কাকতালীয় ভাবে এবছর ঈদের দিনেই কালজয়ী এই গানের স্রষ্টা বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজি নজরুল ইসলামের জন্মদিন।
যার শক্তিশালী লেখা আর ছন্দে আজও উদ্বেলিত গোটা জাতি। আজ সোমবার বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের অন্যতম প্রাণপুরুষ, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২১তম জন্মদিন।

বাংলাদেশের জাতীয় ও বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের
জন্ম: ২৫ মে ১৮৯৯ চুরুলিয়া, বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি,
ব্রিটিশ ভারত (বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গ)।
মৃত্যু:২৯ আগস্ট ১৯৭৬ (বয়স ৭৭)ঢাকা,বাংলাদেশ।
কবির মৃত্যুর কারণ: পিক্স ডিজিজ।
সমাধি করা হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে
মসজিদ প্রাঙ্গন।
আমাদের জাতীয় কবির ছোট বেলার ডাক নাম হলো দুখু মিয়া।নজরুল এক দরিদ্র মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার প্রাথমিক শিক্ষা ছিল ধর্মীয়। স্থানীয় এক মসজিদে সম্মানিত মুয়াযযিন হিসেবেও কাজ করেছিলেন।এছাড়া লেটো গানের দলে গান গাইতেন।

কৈশোরে বিভিন্ন থিয়েটার দলের সাথে কাজ করতে যেয়ে তিনি কবিতা, নাটক এবং সাহিত্য সম্বন্ধে সম্যক জ্ঞান লাভ করেন। ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কিছুদিন কাজ করার পর তিনি সাংবাদিকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নেন। এসময় তিনি কলকাতাতেই থাকতেন।

এসময় তিনি ব্রিটিশ রাজের বিরুদ্ধে প্রত্যক্ষ সংগ্রামে অবতীর্ণ হন। প্রকাশ করেন বিদ্রোহী এবং ভাঙার গানের মতো কবিতা; ধূমকেতুর মতো সাময়িকী। জেলে বন্দী হলে পর লিখেন রাজবন্দীর জবানবন্দী, এই সব সাহিত্যকর্মে সাম্রাজ্যবাদের বিরোধিতা ছিল সুস্পষ্ট। ধার্মিক মুসলিম সমাজ এবং অবহেলিত ভারতীয় জনগণের সাথে তার বিশেষ সম্পর্ক ছিল। তার সাহিত্যকর্মে প্রাধান্য পেয়েছে ভালোবাসা, মুক্তি এবং বিদ্রোহ। ধর্মীয় লিঙ্গভেদের বিরুদ্ধেও তিনি লিখেছেন। ছোটগল্প, উপন্যাস, নাটক লিখলেও তিনি মূলত কবি হিসেবেই বেশি পরিচিত। বাংলা কাব্যে তিনি এক নতুন ধারার জন্ম দেন। এটি হল ইসলামী সঙ্গীত তথা গজল, এর পাশাপাশি তিনি অনেক উৎকৃষ্ট শ্যামা সংগীত ও হিন্দু ভক্তিগীতিও রচনা করেন।

নজরুল প্রায় ৩০০০ গান রচনা এবং অধিকাংশে সুরারোপ করেছেন যেগুলো এখন নজরুল সঙ্গীত বা “নজরুল গীতি” নামে পরিচিত এবং বিশেষ জনপ্রিয়।

১৯২২ সালে প্রকাশ করেন ধূমকেতু পত্রিকা। “আনন্দময়ীর আগমনে” কবিতার জন্য নজরুলকে দেয়া হয় সশ্রম কারাদন্ড। সাহিত্য রচনার পাশাপাশি সংগীত ও চলচ্চিত্রে, পরিচালনা করেন। করেন অভিনয়ও।
১৯৪২ সালে বাকশক্তি হারান নজরুল। মাত্র ২২ বছরের লেখক জীবনে লেখেন প্রায় ৩ হাজার গান, অসংখ্য কবিতা, ছোটগল্প, উপন্যাস।

১৯৭২ সালে কবি নজরুলকে সপরিবারে নিয়ে আসা হয় স্বাধীন বাংলাদেশে। ১৯৭৬ সালের ২৯ আগস্ট তৎকালীন পিজি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন কবি। তার ইচ্ছানুসারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশে তাকে সমাধিস্থ করা হয়।

[caption id="attachment_660" align="alignnone" width="300"] ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশে তাকে সমাধিস্থ করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com