শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১২:৪০ পূর্বাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
নভেম্বরের ১৫ তারিখ থেকে সীমিত পরিসরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হতে পারে বলে জানিয়েছেন -শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সমিতির আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম ও তার পরিবার করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ২.৮ লাখ শিক্ষার্থীর গ্রেডিং অনিশ্চয়তায়। জীবনকে সুন্দর করে গড়ে তোলার নিয়ম-কানুন-ডা.লরেন্স তীমু বৈরাগী বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বেতন নির্ধারণে নীতিমালা করতে কমিটি। সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নের পোস্ট দিতে পারবেন না কলেজের ছাত্র–শিক্ষকেরা-ওয়ার্ল্ড খবর২৪.। ভয়াল মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে এবারের উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি) বা সমমানের পরীক্ষা হবে না।শিক্ষামন্ত্রী। নারী সম্পর্কে সচেতন হতে হবে সমস্ত জাতীকে-ওয়ার্ল্ড খবর

‘আম্ফান’ তার শক্তি বাড়িয়ে ঘূর্ণিঝড়র আকার ধারন করে ধেয়ে আসছে

ডেভিড পি বিশ্বাস / ২৯৪ বার
আপডেট সময় : সোমবার, ১৮ মে, ২০২০

স্টাফ রিপোটার্স :
বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের এই তাণ্ডবের মধ্যেই বঙ্গোপসাগর দিয়ে ধেয়ে আসছে বছরের প্রথম ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’!
আম্ফান ঘূর্ণিঝড় বর্তমানে তার গতিমুখ রয়েছে।
ঘূর্ণিঝড়টি পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে ঢোকার পথ নির্দেশ করছে। তবে গতিপথ যে কোনো সময় পরিবর্তন করতে পারে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।
আম্ফান তার নিজ গতিতে এগোচ্ছে, সেই গতি ধরে রাখলে ১৯ কিংবা ২০ মের দিকে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আঘাত হানবে।
আবহাওয়াবিদ ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, বর্তমান গতিপথ অব্যাহত থাকলে এটি ১৯ মে রাতে বাংলাদেশের হিরণ পয়েন্টের কাছাকাছি কোনো স্থান দিয়ে স্থলভাগে আঘাত হানবে।

দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপটি গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। অতঃপর উত্তর দিক থেকে বাঁক নিচ্ছে উত্তর-পূর্ব দিকে। এখন পর্যন্ত যা গতিপ্রকৃতি, তাতে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান প্রলয়ংকারী রূপ নিয়ে মঙ্গলবার রাতে বা বুধবার খুলনা উপকূলে আঘাত হানতে পারে।


‘আম্ফান’এর নমকরণ:
আম্ফান নামটি দিয়েছে থাইল্যান্ড। ‘আম্ফান’ ২০১৯-এর ঘূর্ণিঝড় তালিকার শেষ নাম। ‘নর্দান ইন্ডিয়ান ওশেন সাইক্লোন’-এর নামগুলো আটটি দেশ পর্যায়ক্রমে রাখে। এই পর্যায়ক্রমগুলো হল-বাংলাদেশ, ভারত, মালদ্বীপ, মিয়ানমার, ওমান, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও থাইল্যান্ড। সেই পর্যায়ক্রমে আট নম্বর তালিকায় শেষ নামটি হল আম্ফান।

এই আম্ফান ঘুর্ণিঝড়টি দ্রুতই শক্তি বৃদ্ধি করছে। ফলে এটি বিপদও বাড়াচ্ছে। তাই চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ২ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার সব নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে এবং সেই সঙ্গে গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

গত রোববার (১৭ মে ২০২০খ্রী:) সকালে বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।
আবহাওয়া অধিদফতরেরর বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ’আম্ফান’ সামান্য উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি গত ১৭ই মে সকাল ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৩৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ২৮০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ২৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ২৫৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরও ঘণীভূত হয়ে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।
তাই আগামী ১৯-০৫-২০২০ খ্রীষ্টাব্দ রোজ মঙ্গলবার বাংলাদেশের সবাই সর্তকতার সাথে থাকবেন।
এক দিকে করোনা ভাইরাস অন্য দিকে আম্ফান ঘুৃণিঝড়।
এই মহামারি ও দূর্যোগে প্রত্যেকই প্রত্যেকের সৃর্ষ্টিকর্তাকে স্মরণ করতে হবে, যেন সকল দূর্যোগ ও মহামারির ছোবল থেকে রক্ষা করেন।

ডেভিড পি বিশ্বাস
স্টাফ রিপোর্টস
ওয়ার্ল্ড খবর24.


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com