শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:৩৫ পূর্বাহ্ন
Logo
শিরোনাম :

ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে নৌকায় চড়তে চান সাবেক ছাত্রনেতা, শিক্ষাবিদ ড. আব্দুল ওয়াদুদ।

স্টাফ রিপোর্টস / ৮৭ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ২২ আগস্ট, ২০২০

ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে নৌকায় চড়তে চান সাবেক ছাত্রনেতা, শিক্ষাবিদ ড. আব্দুল ওয়াদুদ।
ড.আব্দুল ওয়াদুদের পরিচয়:
ড.আব্দুল ওয়াদুদ বরিশাল ফিরোজপুর জেলার কৃতি সন্তান।
ফিরোজপুর জেলার গৌরব,জীবনের পুরোটা সময় বঙ্গঁবন্ধুর হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর সাথে জড়িত ছিলেন।

রাজনৈতিক কর্মকান্ড:
বিগত দিনগুলোতে দেশে যখন আওয়ালীগ কর্মি সংকট ও দেশের মানুষ যখন গণতন্ত্র সংকটে ভুগেছে,ঠিক তখনি আওয়ামীলীগের বঙ্গবন্ধুর একজন প্রকৃত মুজিব সৈনিক হয়ে,আন্দোলনে সমগ্রামে মিচিলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি তখন রাজপথে মাথা উঁচু করে অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন দলকে টিকে রাখার জন্য।

ড.আব্দুল ওয়াদুদ একজন ফিকামনি তত্ত্বের জনক,একজন শিক্ষাবিদ,লেখক,রাজনৈতিক বিশ্লেষক,ক্রীয়া সংগঠক,একজন ফ্রিজিক্যাল ফিটনেস ও ওয়াইল্ড লাইফ বিশেষজ্ঞ।

এছাড়া ড.আব্দুল ওয়াদুদ জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা বাংলাদেশের সফল প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেথ হাসিনার সাথে রাজপথের একজন লড়াকু সৈনিক,আন্দোলন সংগ্রামের বিশ্বাস্ত ভ্যানগার্ড,মৃত্যুজয়ী সাবেক ছাত্র লীগের নেতা ড আব্দুল ওয়াদুদ।

তিনি দিনে-রাতে দলের যেকোনো প্রয়োজনে ছুটে গিয়েছি,বিরোধী দলের শত অন্যায় অত্যাচার ঝুলুম সহ্য করে খেয়ে-না খেয়ে দল চালিয়েছেন নিজের পকেটের টাকা খরচ করে,তারপরও বিরোধী দলের সাথে আপোষ করেনি এই বর্ষিয়ান শিক্ষাবিদ ড.আব্দুল ওয়াদুদ। বঙ্গবন্ধু’কে তিনি মনে প্রানে বিশ্বাস করতেন ভালোবাসতেন তার দেখানো পথে হাঁটতেন।

নেতা হিসেবে নয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে আদর্শে আদর্শিত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন সাধারন সেবাকর্মী হয়ে দীর্ঘদিন তিনি তার নিজ এলাকায় অসহায় নিপিঁডিত হতদরিদ্র কর্মহীন মানুষের পাশে সাহায্যর হাত বাডিয়ে দিয়েছেন। সেবায় তিনি ছিলেন অবিচল জাতির ক্লান্তিলগ্নে সরকারী সহায়তার পাশাপাশি,নিজ ব্যক্তি উদ্দ্যোগে অসংখ্য,অসহায় হতদরিদ্র কর্মহীন মানুষকে ব্যক্তি উদ্দ্যোগে তিনি সহায়তা করেছেন।

ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে নৌকায় চড়তে চান সাবেক ছাত্রনেতা, শিক্ষাবিদ ড. আব্দুল ওয়াদুদ। ঢাকা-১৮ আসনে উপ-নির্বাচনে গত ২০ অক্টোবর মনোনয়নের জন্য দলীয় আবেদনপত্র সংগ্রহ করেছেন তিনি। আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর ধানমন্ডি কার্যালয় থেকে ড. আব্দুল ওয়াদুদ এর পক্ষে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেন উত্তরার বিশিষ্ট সমাজ সেবক, আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব মোঃ ফরিদ জোমাদ্দার ও আলহাজ্ব মালেক ভান্ডারী।

ঢাকা- ১৮ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট সাহেরা খাতুনের অকাল মৃত্যুতে এই আসনটি খালি হয়। এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের স্নেহধন্য ড. আব্দুল ওয়াদুদ দলের দুঃসময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সাথে রাজপথে আন্দোলন সংগ্রামে ছিলেন এক অকুতোভয় সৈনিক। ধারনা করা হচ্ছে এই ছাত্র নেতাই উপ-নির্বাচনে নৌকার টিকিট পাবেন।

সমাজ সেবক ও আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব মালেক ভান্ডারি বলেন,আমি কোন বসন্তের কোকিল নই।
দুর্নীতি আমাকে কখনও স্পর্শ করতে পারে নাই।


প্রধানমন্ত্রীর জন্য ব্যাপক জনমত গড়তে ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকান্ডে সব সময়েই তিনি পাশে ছিলেন।
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় গতকাল ড. ওয়াদুদ এর সাথে তার বাস ভবনে দেখা করেন।এ সময় তার সাথে আরো অনেক নেতা কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

তিনি বলেন সৎ, পরিশ্রমী এবং দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ ড. ওয়াদুদ ভাইকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা যদি মূল্যায়ন করেন তাহলে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে। ড. ওয়াদুদ ভাই আমাদের জন্য একজন আদর্শবান ছাত্রনেতা। বাংলাদেশে আমরা তার লক্ষ কোটি ভক্ত অনুরাগী রয়েছি। তাঁর মত একজন পরিচ্ছন্ন ও ক্লিন ইমেজের ব্যক্তি এই সময়ে জননেত্রীর পাশে খুবই প্রয়োজন।

মনোনয়ন পত্র সংগ্রহের সময় ঢাকা- ১৮ আসনের আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও সুধী সমাজের বিপুল সংখ্যক নেতা কর্মী স্বাস্থ্য বিধি মেনে ধানমন্ডিস্থ’ আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে উপস্থি’ত ছিলেন।

মো:শাহজাহান বিপ্লব


বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ” ধর্মিয় বিষয়ক “কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক এবং বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মো:শাহজাহান তার সকল কর্মকান্ডে সক্রিয় অংশ গ্রহণ করছেন,এবং তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, ড.আব্দুল ওয়াদুদ যেহেতু একজন সৎ, আদর্শ এবং যোগ্য ব্যক্তি তাই একমাত্র তিনিই নৌকার প্রতিক পাওয়ার যোগ্য।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় “স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক ” কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য,বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির আজীবন সদস্য ডা লরেন্স তীমু বৈরাগী বলেন-
যেহেতু তিনি একজন সমাজ সেবক রাজনীতিবিদ,মানব দরদী মানুষ,যার মধ্যে নেই কোন ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য,যিনি সর্বস্তরের মানুষের সাথে মিশতে পারেন,যার জীবন নিবেদিত হলো দলের জন্য, সেই ব্যক্তিকে যদি নৌকার মার্কা দেওয়া হয়, তবে সর্বস্তরের মানুষ উপকৃত হবে,তাই আমাদের সবার প্রানের দাবি ড.আব্দুল ওয়াদুদকে নৌকার মার্কা দিয়ে সবার সেবা করার সুযোগ দিন।
www.worldkhobor24.com
01711114817


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com