রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:১৪ অপরাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
কুমিল্লায় মাস্ক ব্যবহারে সচেতনতা বৃদ্ধিতে প্রচারাভিযান- পেঁয়াজ দাম নিয়ন্ত্রণের জন্য এক মাস সময় চান বাণিজ্যমন্ত্রী-টিপু মুনশি। কুমিল্লা বি-পাড়ার আলহাজ্ব আবু তাহের আর নেই। চলে গেলন না ফেরার দেশে অভিনেতা সাদেক বাচ্চু। মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মের দাবি আদায়ের বলিষ্ট ভূমিকায়- ড.আব্দুল ওয়াদুদ দু:খ কষ্ট ভুলে গিয়ে এগিয়ে যাওয়ার নামই জীবন। Farhana Haque Lima এক সময়ের পর্দা কাপানো নায়ক ফারুক অসুস্থ-ওয়ার্ল্ড খবর২৪ চীন আর ভারত হঠাৎ করে শান্তি ফিরিয়ে আনলো কীভাবে? ইসরায়েলের সাথে শান্তিচুক্তি: আমিরাত ও বাহরাইনের পর কি সৌদি আরব? সমাজে নারী পুরুষ একসাথে কাজ করলে, উন্নয়নের গতি বেড়ে যাবে।
কথায় নয়, কাজে প্রমাণ করতে হবে-লক ডাউন।

সম্পাদকীয় প্রতিবেদন :
কাগজ-পত্রে,ঘোষণা ও প্রচার প্রচারনায়-ই লক ডাউনের কথা থাকলে হবে না,তা প্রমান করতে হবে কাজে,তা না হলে খেশারত দিতে হবে বাংলাদেশের অনেক মানুষের প্রাণ হারিয়ে।
তাই কথায় নয়,বাস্তবে তা কাজে প্রমান করতে হবে প্রত্যেকেই।
আমরা একটু ভেবে দেখি আমরা –
২০১৯-২০ খ্রী: করোনা ভাইরাস বৈশ্বিক মহামারীটির প্রথম সংক্রমণের ঘটে।
কিন্তু বাংলাদেশে প্রথম করোনা ভাইরাসেরর আগমনের ঘটে ৮ মার্চ ২০২০খ্রীষ্টাব্দে।এবং প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয় তিন জন । তাদের মধ্যে দুইজন ইতালি ফেরত রয়েছেন।
কিন্তু এই সংক্রামণ করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি স্থান : উহান, হুবেই প্রদেশ, চীন। কিন্তু আজ তা ছড়িয়ে পড়েছে পৃথিবীর ২১৩টি দেশে।আক্রান্ত হয়েছে ৩৮ লাখের বেশি,মৃত্যু সংখ্যা দাড়িয়েছে ৩ লাখ ১৬ হাজারের বেশী।

১৬ মে ২০২০ ইং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের স্বাস্থ্য বুলেটিন অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত (১৭ মে ২০২০) কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হয়েছে সর্বমোট ১,৭৫,২২৮ জনের; যার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায়, ৮,১১৪ জনের এবং তাদের মধ্যে আক্রান্ত পাওয়া গেছে ১,২৭৩ জন। এখন পর্যন্ত সর্বমোট আক্রান্ত পাওয়া গেছে ২২,২৬৮ জন।
দেশে মোট সুস্থ হয়ে বাড়ী চলে গেছেন ৪,৩৭৩ জন; যার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২৫৬ জন।
দেশে গত ২৪ ঘন্টায় ১৪ জন মৃত্যু বরণ করেছে। মোট মৃত্যুঃ ৩২৮ জন।
উপরের হিসাব অনুযায়ী যদি করোনার প্রাদুর্ভাব বাড়ে, তবে কি হবে আমাদের অবস্থা?
প্রশ্নটা সবার কাছে
কিন্তু সরকার ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এই মহামানি করোনা ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচার জন্য কিছু উপদেশ, কিছু নিয়ম-কানুন ও লক ডাউন দিয়ে রক্ষা করতে চাচ্ছে বাংলাদেশকে এই করোনার হাত থেকে।
কিন্তু টেলিভিশন খুললে,রাস্তা-ঘাট,বাজার সহ সর্বত্র যে দিকে চোখ যায়, সব দিকেই অনিয়ম ও লোকালয়।

তাই এস বন্ধের জন্য গত বুধবার (১৮ মার্চ ২০২০ খ্রী:) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) অনকোলজি বিভাগ আয়োজিত এক সভায় বলেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন,
আজ যখন সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়াছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণ তাই এই করোনা ভাইরাস রোধে বাংলাদেশে প্রয়োজনে লক ডাউন। তাই প্রয়োজনে করা হতে পারে লক ডাইন তা জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।
দেওয়া হযেছে সরকারি ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে কিছু নির্দেশনা। যা মেনে চললে,পাওয়া যাবে এই মহামরি করোনা ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা।
অথচ আমরা কি তা মেনে চলছি?
আমরা দেখতে পাই চীন তার দেশেন সকল আইন মেনে চলে তারা এখন করোনা মুক্ত।
ভিয়েতনামের মতো দেশ,যাদের মধ্যে করোনা ভাইরাসের আক্রমণে কাউকেই প্রাণ হারাতে হয় নি, কারণ তাদের দেশের প্রত্যেকটি মানুষ সরকারি আইন মেনে চলেছে তাই।

সরকার ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা-
আমরা সবাই ঘরে থাকি, বার বার সাবান দিয়ে হাত পরিস্কার করি, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখি। নিজে সুস্থ থাকি ও অন্যকে সুস্থ থাকতে সহয়তা করি।

তাই আসুন আমরা দেশের আইন-কানুন মেনে চলি, সুস্থ ও সুন্দর ভাবে জীবন-যাপন করি।
না হয় বাংলাদেশ এক মৃত্যু নগরীতে পরিনত হয়ে যাবে।

ডা.লরেন্স তীমু বৈরাগী।
সম্পাদক
ওয়ার্ল্ড খবর২৪
ই-মেইল- lorencetimo@gmail.com

Theme Created By ThemesDealer.Com